Â

জাতীয় শিক্ষানীতি কার্যকর এই বছর থেকেই। অধ্যাপনার যোগ্যতাতেও আসতে চলেছে আমূল পরিবর্তন।

চালু হতে চলেছে চার বছরের স্নাতক কোর্স। নতুন জাতীয় শিক্ষানীতির আদলে তৈরি এই কোর্স সম্পন্ন করলে মিলবে বিশেষ সুবিধা। কলেজ ও ইউনিভার্সিটি গুলিতে এই কোর্স কবে থেকে শুরু হচ্ছে, এই ডিগ্রিতে কি কি সুযোগ সুবিধা রয়েছে সমস্ত আলোচনা করা হলো এই প্রতিবেদনে। পাশাপাশি বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর পদে আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা নিয়েও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন।

গত বছরই দেশের সমস্ত কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় গুলিকে ৩ বছরের পরিবর্তে ৪ বছরের স্নাতক কোর্স শুরু করার সুপারিশ দেয় বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন। ২০২২ এর ডিসেম্বরে চার বছরের কোর্সের সিলেবাস সংক্রান্ত গাইডলাইনও তৈরি করে ফেলে ইউজিসি। বিগত বছরই নতুন এই জাতীয় শিক্ষানীতি লাগু হওয়ার কথা উঠলেও রাজ্যে পরিকাঠামোগত অপ্রস্ততির কারণে ৪ বছরের স্নাতক কোর্সে পঠন পাঠন চালু করা সম্ভব হয়নি।

যদিও বিশ্ববিদ্যালয় গুলিকে এই শিক্ষানীতি নিয়ে বিবেচনা করার স্বাধীনতা দিয়েছিল UGC। সম্প্রতি কেন্দ্রের নতুন শিক্ষানীতি (National Education Policy) মেনে নিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার গণকে এই বছর থেকেই University Grants Commission এর নতুন গাইডলাইন মতো চার বছরের স্নাতক কোর্স চালু করার অনুমোদন দিয়েছে রাজ্য শিক্ষা দপ্তর।

আরও পড়ুন: নার্সারির ব্যবসা করে প্রচুর আয় করার সুযোগ দিচ্ছে সরকার। জানুন কিভাবে।

এবছর থেকে যেসকল শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে কলেজে স্নাতক স্তরে ভর্তি হবে তাদের জন্য এই নতুন জাতীয় শিক্ষানীতি কার্যকর হবে বলে জানিয়েছে শিক্ষা দপ্তর। শিক্ষার নতুন পলিসি অনুযায়ী এখন থেকে রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্গত সমস্ত কলেজে কেবল একটি কেন্দ্রীয় পোর্টালের মাধ্যমে আবেদন করা যাবে। এবং সেন্ট্রালাইজ কাউন্সেলিং এর মাধ্যমেই নির্দিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে পারবেন বিদ্যার্থীরা।

এখন থেকে স্নাতক স্তরে ভর্তি এবং ড্রপ আউটের কোনো সীমাবদ্ধতা থাকবে না। কোনো কারণবশত কেউ যদি প্রথম বর্ষের পর পড়াশোনা ছেড়ে দেন কিম্বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে বেড়িয়ে যেতে চান তাদের দেওয়া হবে স্নাতক সার্টিফিকেট। যেসকল পড়ুয়া দ্বিতীয় বর্ষের পর ড্রপআউট হবেন তাদের ডিপ্লোমা সার্টিফিকেট দেওয়া হবে। পড়াশোনার তৃতীয় বছর সম্পন্ন করলে মিলবে স্নাতক ডিগ্রি সার্টিফিকেট।

4-years-degree

এছাড়া চতুর্থ বছর পড়াশোনা করে থাকলে অনার্স ডিগ্রি সাথে গবেষণা সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে। সেইসঙ্গে চতুর্থ বছরের স্নাতক কোর্স পড়ার পাশাপাশি মিলবে ইন্টার্নশিপ করার সুযোগ। Online Distance Learning, Offline Regular Degree Programme উভয় কোর্সের প্রার্থীরাই এই সুযোগ পাবেন। আর্টস, সায়েন্স, কমার্স সব শাখাতেই যেকোনো সময় যেকোনো বিষয় পরিবর্তনের সুযোগ থাকছে।

এতদিন তিন বছরের স্নাতক ডিগ্রির পর দুই বছরের মাস্টার্স ডিগ্রি সম্পন্ন করার পর গবেষণা স্তরে ভর্তি হওয়া যেত। নতুন শিক্ষানীতি প্রনয়নের ফলে চার বছরের ডিগ্রি কোর্স সম্পন্ন করলেই গবেষণা স্তরে ভর্তি হতে পারবেন ছাত্র-ছাত্রীরা।

সম্প্রতি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় গুলিতে অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর পদে অধ্যাপনার ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন। এতদিন পিএইচডি ডিগ্রি থাকলে তবেই অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর পদে চাকরির জন্য আবেদন করা যেত। নতুন নিয়ম অনুযায়ী স্নাতকোত্তর পাসরা নেট (NET) কোয়ালিফাই করে থাকলেই Assistant Professor পদে আবেদন করতে পারবেন।

তবে ইউজিসির এই ভাবনায় কেন্দ্রীয়ভাবে এখনো চূড়ান্ত সিলমোহর পড়েনি। এই সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত এখনো পর্যন্ত কেন্দ্রীয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিবেচনা পর্যায়ে রয়েছে। কিন্তু এই শিক্ষা আইন বাস্তবায়িত হলে গবেষণা স্তরে সুযোগ পাওয়া পড়ুয়াদের পক্ষে আরও সহজ হবে এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞ মহল।

Like Facebook Page