Â

মেয়েদের হাজার হাজার টাকা দিচ্ছে কেন্দ্র সরকার। আবেদন করুন এই প্রকল্প গুলিতে।

আজও ভারতীয় উপমহাদেশে কারো ঘরে কন্যা সন্তান জন্ম হলে পরিবারের মুখ চিন্তায় ভার হয়ে আসে। একজন মেয়ের জন্ম হওয়ার সাথে সাথে তার পরিবারের ওপর অনেক দায়িত্ব এসে পরে। যেমন- কন্যা সন্তানের পড়াশোনা থেকে শুরু করে কন্যাসন্তানের বিয়ে ইত্যাদি। এই সমস্ত ঝক্কি থেকে বাঁচতে সাধারন মানুষ এখনো তাদের মেয়েদের খুব কম বয়সে বিয়ে দিয়ে দেন। যা পশ্চিমবঙ্গ সহ গোটা দেশের মহিলা জাতির জন্য একটি অভিশাপের মতো। তাই মহিলা জাতির উন্নতিকল্পে বেশ কিছু প্রকল্প চালু করেছে কেন্দ্র সরকার।

এমনকি কন্যা সন্তানদের বাল্য বিবাহ রোধ করার জন্যও বিভিন্ন রাজ্যের রাজ্য সরকার ও কেন্দ্র সরকার বিভিন্ন ধরনের প্রকল্প চালু করেছে। তেমনই কেন্দ্র সরকারের একটি উদ্যোগ হলো ‘বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও’ অভিযান। এই উদ্যোগের মাধ্যমে কেন্দ্র সরকার কন্যা সন্তানের পড়াশোনা থেকে শুরু করে বিবাহ পর্যন্ত বিভিন্ন রকম প্রকল্পের মাধ্যমে আর্থিক সাহায্য দিয়ে থাকে। আজ আমরা কেন্দ্রীয় সরকারের এই বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও নিয়ে আলোচনা করতে চলেছি। আমরা মূলত আলোচনা করবো এই উদ্যোগের আওতায় কি কি প্রকল্প চালু করেছে কেন্দ্র সরকার। এবং এই সমস্ত প্রকল্পে আবেদন করে কন্যা সন্তানরা কিভাবে উপকৃত হতে পারে।

আজ আমরা আলোচনা করবো মূলত দুটি প্রকল্প নিয়ে একটি হলো সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা এবং অপরটি হলো বালিকা সমৃদ্ধি যোজনা।

আরও পড়ুনঃ- ওয়েসিস স্কলারশিপ ২০২৩ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ আপডেট। আবেদন করে পেয়ে যান ভালো পরিমাণ বৃত্তি।

সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা:-

সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা প্রকল্প কেন্দ্র সরকারের নারীশিক্ষার প্রসারে চালু করা সেরা প্রকল্পগুলির মধ্যে একটি। এটি সাধারণত ১০ বছর বয়সের আগে প্রথম এবং দ্বিতীয় কন্যা সন্তানের জন্য খোলা যায়। যদি কোনো কারনে দ্বিতীয় বার যমজ কন্যা সন্তানের জন্ম হয় অথবা প্রথমবারে তিনটি সন্তানের একই সাথে জন্ম হয় তবে তৃতীয সন্তানের জন্যও এই প্রকল্পের আওতায় আবেদন জানানো যায়। যেকোনো ব্যাঙ্ক এবং পোস্ট অফিসের মাধ্যমে এই প্রকল্পে আবেদন জানানো যায়।

এই প্রকল্পের মাধ্যমে কন্যা সন্তানের ভবিষ্যত সুরক্ষার জন্য তার বাবা-মা অথবা অভিভাবক কিছু টাকা সঞ্চয় করে নির্দিষ্ট অ্যাকাউন্টে। এবং কন্যা সন্তানের যখন ২১ বছর পুর্ণ হয় তখন সংশ্লিষ্ট অ্যাকাউন্ট থেকে একটি ভালো পরিমাণ টাকা পেয়ে যায় কন্যা, যার মাধ্যমে তার বিবাহ বা পড়াশোনার জন্য অনেকটাই সাহায্য হয়। উল্লেখ্য, এই প্রকল্পের আওতায় ৮% হারে সুদ পাওয়া যায়।

বালিকা সমৃদ্ধি যোজনা:-

এই যোজনার আওতায় কন্যা সন্তানদের তাদের পড়াশোনা চালিয়ে নিয়ে যাবার জন্য প্রতি বছর ভাতা স্বরূপ বৃত্তি দেওয়া হয়ে থাকে কেন্দ্র সরকারের তরফে। এছাড়াও এই প্রকল্পের আওতায় কন্যা সন্তান জন্ম হলেই মায়েদের পঞ্চাশ হাজার টাকা দেওয়া হয় সরকারের পক্ষ থেকে।

আরও পড়ুনঃ- ভুলবশত অপরিচিত UPI তে টাকা পাঠালে টাকা ফেরত পাবেন কিভাবে ?

এই প্রকল্পের মাধ্যমে কত টাকা পাওয়া যায়?

প্রথম শ্রৈণী থেকে তৃতীয় শ্রেণী পর্যন্ত ৩০০ টাকা প্রতিবছর। চতুর্থ শ্রেণীতে পড়াকালীন ৫০০ টাকা, পঞ্চম শ্রেণীতে ৬০০ টাকা, সপ্তম শ্রেণী ও অষ্টম শ্রেণীতে ৭০০ টাকা, অষ্টম শ্রেণীতে ৮০০ টাকা এবং নবম ও দশম শ্রেণীতে ১০০০ টাকা বৃত্তি দেওয়া হয়ে থাকে।

এই যোজনায় আবেদন করতে গেলে আপনাকে অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী এবং স্বাস্থ্য পরিষেবা কেন্দ্রে গিয়ে এই প্রকল্পের ফর্ম সংগ্রহ করতে হবে। এরপর সেটিকে সঠিক ভাবে পূরণ করে গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টস একই সঙ্গে যুক্ত করে সঠিক স্থানে জমা দিলেই এই প্রকল্পের আওতায় আবেদন সম্পুর্ণ হবে।

Like Facebook Page