Â

ঘুমের ঘোরে কথা বন্ধ! হাত-পা অবশ হয়ে যায়? জানুন বোবায় ধরার কারণ ও এর থেকে প্রতিকারের উপায়।

ঘুমের মধ্যে বোবায় ধরে? অথবা হাত পা অবশ হয়ে যায়? জানুন নিশিতে পাওয়ার আসল কারণ। এর থেকে কিভাবেই বা মুক্তি পাবেন?

অনেক সময়ই ঘুমের ঘোরে বোবায় ধরে বলে শোনা যায়। ঘুমের মধ্যে হাত পা অবশ হয়ে আসছে এমন সমস্যার কথা শোনা যায়। অনেকে বলেন কে যেন গলা দাবাতে আসছে। কেউ আবার এও বলেন, কে যেন ঘুমের মধ্যেই বেল্ট দিয়ে বাঁধতে আসছে। এই পরিস্থিতিতে মানসিক ও শারীরিক হুশ থাকে না। অবচেতন মননে এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

নিশিতে ধরার লক্ষ্মণ:-

এমন অবস্থায় কারও শরীর অবশ হয়ে যায় তো কেউ কথা হারিয়ে ফেলেন। এই সময় পঞ্চেন্দ্রিয় কাজ করা বন্ধ করে দেয়। এহেন পরিস্থিতিতে মনে হয় কেউ পা-হাত বেঁধে রেখেছে। আপনি কথা বলতে চাইলেও পারেন না। আপনার শারীরিক অবস্থা স্বাভাবিক হতে বেশ কিছুক্ষণ সময় লাগে। চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় এ কে বলা হয় স্লিপ প্যারালাইসিস (Sleep Paralysis)। মফস্বলে অনেকে এই ঘটনাকে বোবায় ধরা বা নিশিতে পাওয়া বলে থাকেন।

বোবায় ধরার কারণ:-

এই নিশিতে পাওয়া কালীন অনেকে ঘুমের ঘোরে আধিভৌতিক সমস্ত কার্যকলাপ দেখছেন বলেও জানিয়েছেন। আসলে এর প্রকৃত কারণ- চিকিৎসকেরা বলে থাকেন, রাতে নেশাজাত দ্রব্য বা ক্যাফিন পান করা অথবা অনিয়মিত ঘুমের রুটিনের জন্যই এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

যখন প্রচন্ড ঘুমন্ত অবস্থা এবং জেগে থাকার মাঝামাঝি অবস্থা মস্তিষ্ক সজাগ ও সতেজ থাকে তখনই এই স্লিপ প্যারালাইসিস বা বোবায় ধরার মতো পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। সারাক্ষণ সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন চিন্তনের বিষয়বস্তু উপলব্ধি বা পর্যবেক্ষণ করলেও এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে।

আরও পড়ুনঃ- ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থাকলেই ভোটের আগে টাকা দিচ্ছে কোম্পানি। কিসের এই টাকা? কারা কারা পাবেন?

প্রতিকারের উপায়:-

প্রতিদিন কমপক্ষে সাত-আট ঘন্টা ঘুমোন এবং একই সময়ে ঘুমোতে যাওয়া ও ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস করেন। রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে নেশা জাত দ্রব্য বা কোনও উত্তেজনাপূর্ন ক্যাফিন সেবন করবেন না।

sleep paralysis

এছাড়াও কখনো কখনো অতিরিক্ত নেশা করলেও এমন অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে। সর্বদা চা পান বা ধূমপান করাও এর একটি বড়ো কারণ।

এরকম লাইফ স্টাইল ও স্বাস্থ্য সম্পর্কিত আরও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ খবরের a to z আপডেট নোটিফিকেশন সবার আগে পেতে হলে আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া গ্রুপে জয়েন করুন। পারলে তথ্যটি শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ।

হোয়াটসঅ্যাপ:- Link

টেলিগ্রাম:- Link

Like Facebook Page