Â

এলপিজি সিলিন্ডার ব্যবহারের নিয়মে বিরাট পরিবর্তন। গ্যাস ব্যবহারের খরচ বাড়তে চলেছে।

দেশজুড়ে গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারের নিয়ম বদলে যেতে চলেছে। আর ব্যবহার করা যাবেনা পুরোনো এলপিজি সিলিন্ডার। নতুন নিয়মে নতুন গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহার করতে হবে সকলকেই। বৃদ্ধি পেতে চলেছে গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারের খরচ। ব্যাপারটি কি? বিস্তারিতভাবে জানতে হলে নিচের সম্পূর্ণ প্রতিবেদনটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ার অনুরোধ রইলো।

সারা ভারতেই লোহার তৈরি এলপিজি সিলিন্ডার এর ব্যবহার ক্রমশ লুপ্ত করে দিতে চাইছে মোদি সরকার। এর পরিবর্তে অন্য এক ধরনের কম্পোজাইট সিলিন্ডার আনতে চলেছে কেন্দ্র। এরফলে নিরাপত্তা যেমন বাড়বে তেমনই গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারে খরচেরও পরিবর্তন হবে বলে জানা গিয়েছে।

লোহার গ্যাস সিলিন্ডার গুলির ব্যবহারের ফলে মরিচা পড়ায় এতা ভঙ্গুর হয়ে গিয়ে গ্যাস সিলিন্ডার ফেটে দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা থাকতো। তবে এই নতুন কম্পোজিট গ্যাস সিলিন্ডার গুলি ফাইবার ধাতব পদার্থ দিয়ে তৈরি হওয়ায় এই ধরনের সিলিন্ডার লিকেজ করার সম্ভাবনা খুবই কম। আর লিক হলেও নরম ফাইবার গলে লিক সিল করে দিতে পারে তৎক্ষনাৎ। ফলে দুর্ঘটনা ঘটার চান্স প্রায় থাকে না।

লোহার গ্যাস সিলিন্ডার ওজনে যথেষ্ট ভারী হওয়ায় তা একস্থান থেকে অন্যস্থানে বয়ে নিয়ে যাওয়া কষ্টসাধ্য। অপরপক্ষে, কম্পোজিট গ্যাস সিলিন্ডার ফাইবার বা প্লাস্টিকের তৈরি হওয়ায় তা ওজনে হালকা যা সহজেই একস্থান থেকে অন্যস্থানে বয়ে নিয়ে যাওয়া সুবিধাজনক। গত বছরেই এই সিলিন্ডারের প্রক্রিয়াকরণ সম্পন্ন হয়ে বেশ কিছু রাজ্যে এর ব্যবহারিক প্রয়োগও শুরু হয়ে গিয়েছে।

বিভিন্ন মাধ্যম সূত্রে খবর, চলতি বছর মার্চের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গেও ব্যাপকহারে এই কম্পোজাইট গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যবহার বৃদ্ধি পাবে। ধাপে ধাপে লোহার গ্যাস সিলিন্ডার এর ব্যবহার লুপ্ত করা হবে এবং ফাইবার বা নরম ধাতুর তৈরী গ্যাস সিলিন্ডার এর ব্যবহার ধাপে ধাপে বৃদ্ধি করা হবে।

লোহার গ্যাস সিলিন্ডারে বাইরে থেকে কতটা গ্যাস বাকি আছে তা বোঝার উপায় ছিলনা। তবে এই কম্পোজিট গ্যাস সিলিন্ডার বাইরে থেকেই দেখে বোঝা যাবে যে অন্দরে কতটা গ্যাস অবশিষ্ট রয়েছে। এছাড়াও দুর্ঘটনাজনিত নিরাপত্তা বৃদ্ধির পাশাপাশি খরচ কিছুটা বাড়তে চলেছে কম্পোজাইট রান্নার গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারকারীদের।

আরও পড়ুনঃ- কন্যাশ্রী, লক্ষ্মীর ভান্ডার অতীত। এই নতুন প্রকল্পে মহিলাদের ভালো পরিমাণ টাকা দিচ্ছে নরেন্দ্র মোদি সরকার।

the rules of using lpg cylinder will be changed

কম্পোজিট সিলিন্ডারে ভর্তি করে বিক্রিত গ্যাস যারা নেবেন তাদের নতুন গ্যাস সিলিন্ডার পাওয়ার জন্য তিন হাজার টাকা জমা করতে হবে গ্যাস অফিসে। এবং যাদের পুরোনো লোহার গ্যাস সিলিন্ডারের সংযোগ রয়েছে তাদের তো বাইশশো টাকা জমা করাই আছে। কম্পোজিট গ্যাস সিলিন্ডার পেতে অতিরিক্ত ৮০০ টাকা জমা করতে হবে তাদের।

গ্যাস সিলিন্ডার এর মূল্য হ্রাস-বৃদ্ধি, ভর্তুকি আপডেট ও এলপিজি সিলিন্ডার ব্যবহার ও ডেলিভারি সংক্রান্ত সমস্ত রকম গুরুত্বপূর্ণ খবর নোটিশ সবার আগে পেতে আমাদের নিচের মাধ্যমগুলোতে যুক্ত হন।

হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ:- Link

টেলিগ্রাম এ যুক্ত হন:- Link

হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেল:- Link

Like Facebook Page