Â

স্কুল শিক্ষকদের নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিল সরকার। প্রফেসরদের সমান গুরুত্ব পাবেন তারা।

রাজ্যজুড়ে স্কুল শিক্ষকদের নিয়ে বিরাট গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। কলেজের প্রফেসরদের মতো তাদেরও গুরুত্ব দেওয়া হবে। রাজ্য সরকারের তরফে মেনে নেওয়া হলো স্কুল শিক্ষকদের বহুদিনের দাবি। আপাতত এই নিয়ম হাইস্কুল স্তরের শিক্ষকদের জন্যই লাগু করতে চলেছে সরকার। এই বিষয়ে খুব শীঘ্রই অফিশিয়াল নোটিশ বিজ্ঞপ্তি জারি করবে রাজ্য সরকার বলে নবান্ন সূত্রে খবর।

কলেজ বা ইউনিভার্সিটির প্রফেসর বা অধ্যক্ষদের যেমন পদোন্নতি বা প্রোমোশন সিস্টেম রয়েছে। অভিজ্ঞতা বাড়ার সাথে সাথে তারা উচ্চপদে আসীন হতে থাকেন। একজন অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর অভিজ্ঞতা বৃদ্ধির সাথে সাথে অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর বা ডিন, প্রফেসর ইত্যাদি পদে প্রোমোশন পেয়ে থাকেন। কিন্তু স্কুল শিক্ষকদের বেলায় এরকম কোনও নিয়ম নেই।

একজন হাইস্কুল শিক্ষক বা শিক্ষিকা সহকারী শিক্ষক/শিক্ষিকা হিসেবে বিদ্যালয়ে যোগদান করে আবার সহকারী শিক্ষক বা শিক্ষিকা হিসেবেই অবসর গ্রহণ করে থাকেন। ঠিক একইরকমভাবে প্রধান শিক্ষক/শিক্ষিকা পদে কর্মরতরাও একই পদে থেকে অবসর গ্রহণ করে থাকেন। স্কুল স্তরে শিক্ষকদের পদোন্নতির জন্য এতদিন কোনও ব্যবস্থা বা পদক্ষেপ করেনি সরকার। কিন্তু এবার প্রফেসরের মতো স্কুল শিক্ষকদের পদোন্নতির কথা ভাবছে রাজ্য সরকার।

নবান্ন সূত্রে আপডেট, শিক্ষকদের পদোন্নতির জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে একটি কমুটি গঠন করেছে রাজ্য সরকার। কমিটির সদস্যরা অক্টোবরে এই সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট রাজ্যের উচ্চ শিক্ষা দপ্তরে ইতিমধ্যেই পেশ করেছেন। ওই কমিটির এক সদস্য সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, প্রফেসরদের প্রোমোশন যেমন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের গাইডলাইন মেনে হয়। তেমনি রাজ্য উচ্চ শিক্ষা দপ্তরের Academic Performance Indicator মেনে স্কুল শিক্ষকদের পদোন্নতির ব্যবস্থা করতে চাইছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার।

আরও পড়ুনঃ- পোস্ট অফিস এই স্কিমে সর্বোচ্চ হারে সুদ দিচ্ছে। বিনিয়োগ করলে সারাজীবন টাকা পাবেন।

এই প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ মধ্য শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি চিরঞ্জীবী ভট্টাচার্য্য সংবাদমাধ্যমে খোলাসা করেছেন, বহুদিন ধরেই রাজ্যের শিক্ষকেরা এই বিষয়ে দাবি জানিয়ে আসছিল। তাদের দাবি মেনেই শিক্ষক পদোন্নতির জন্য এই গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। তিনি আরও বলেন, প্রফেসরদের পদোন্নতির বেলায় যেমন অভিজ্ঞতা হিসেবে প্রফেসরের বিভিন্ন গবেষণাপত্র প্রকাশ, লেকচারাল প্যাটার্ন এক্সপেরিয়েন্স, বিভিন্ন বিদেশি রিসার্চ এন্ড এক্সপেরিমেন্টাল জার্নাল পড়া ও তার সাথে যুক্ত হওয়ার কার্যকলাপ দেখা হয়, তেমনি শিক্ষকদের পদোন্নতির বেলায় বিভিন্ন স্কুল শিক্ষকদের বই লেখার অভিজ্ঞতা, শিক্ষক/শিক্ষিকার ক্লাস পরিচালনা পদ্ধতি ও নির্দিষ্ট বিষয়ের শিক্ষক এক্সট্রা কারিকুলার অ্যাক্টিভিটিস এর সাথে কতটা যুক্ত তা বিচার করে দেখা হবে।

এমন আরও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ও টাটকা খবরাখবর সম্বন্ধে সবরকমের আপডেট পেতে আমাদের অবশ্যই হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেল এ অনুসরণ করুন।

হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেল:- Link

Like Facebook Page