Â

ভোটের আগে বড়ো ধামাকা। লক্ষ্মীর ভান্ডারে বরাদ্দ টাকার পরিমাণ বাড়ালো রাজ্য সরকার।

লক্ষ্মীর ভান্ডারে আবেদনকারীদের জন্য বিরাট খুশির খবর। তেইশে পঞ্চায়েত ভোটের আগেই বড়ো ঘোষণা করলো রাজ্য সরকার। বাড়ানো হচ্ছে লক্ষ্মীর ভান্ডারে বরাদ্দ টাকার পরিমাণ। স্বভাবতই রাজ্যজুড়ে খুশির জোয়ারে ভাসছেন বাংলার মহিলারা। পাশাপাশি নবান্ন সূত্রে খবর, আগের থেকে এখন আরও বেশি সংখ্যক মহিলা কে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের আওতায় নিয়ে আসা হবে। এই সংক্রান্ত রাজ্য-জেলা পর্যায়ের মূল্যবান বৈঠকে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য শীর্ষ নেতৃত্ব।

এখনো পর্যন্ত রাজ্যে প্রায় ১ কোটি ৯০ লাখের মতো বাংলার মা-মেয়েরা লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে ৫০০, ১০০০ টাকা করে ভাতা পাচ্ছেন। তবে জাতিগত শংসাপত্র, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সাথে আধার লিঙ্ক, সিঙ্গেল ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এবং আইএফএস কোড সংক্রান্ত সমস্যার কারণে রাজ্যের অনেক মহিলাই এই প্রকল্পের সুবিধা পাচ্ছেন না। উক্ত ত্রুটির কারণ প্রায় দুই লক্ষাধিক মহিলা লক্ষ্মী ভাতার টাকা পাওয়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। আবেদনকারীদের অভিযোগ, সমস্ত ডকুমেন্টস সঠিকভাবে জমা দেওয়ার পর এবং সমস্যার সমাধান পাওয়া যাচ্ছে না অর্থাৎ প্রাপ্য লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে টাকা পাচ্ছেন না তারা।

আরও পড়ুনঃ- প্রত্যেক পড়ুয়া পাবেন ৩৩,০০০ টাকা পর্যন্ত। আবেদন করুন ঐক্যশ্রী মাইনরিটি স্কলারশিপে।

এদিন শনিবার রাজ্য স্তরের বৈঠকে সকল জেলাশাসকদের সাথে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। ঠিক যে যে কারণে আবেদনকারী মহিলারা মহিলার লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের সুবিধা পাচ্ছেন না তা খতিয়ে দেখতে নির্দেশ দেন মুখ্যসচিব। পাশাপাশি উক্ত সমস্যাগুলোর দ্রুত সমাধান করে আবেদনকারী মহিলাদের শীঘ্রই লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের আওতায় নিয়ে আসতে জেলাশাসক নির্দেশ দেন তিনি। বিভিন্ন মাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, এত বিপুল সংখ্যক আবেদনকারীর ভেরিফিকেশন ও নথি সংশোধনের জন্য ডকুমেন্টস যাচাইকরণের কাজ বাকি থাকার জন্যই আবেদনকারীরা টাকা পাচ্ছেন না।

এর পাশাপাশি দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে সরকারের প্রকল্পগুলিতে কর্মচারীদের যাতে কোনো গাফিলতি না থাকে এবং খুব দ্রুত কাজ সেরে ফেলতেও নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যসচিব দ্বিবেদী। বিডিও পুলিশ সুপার ও জেলাশাসকদের দুয়ারে সরকার ক্যাম্প গুলিতে সরেজমিনে গিয়ে কাজ দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তেইশে পঞ্চায়েত ভোটের এই এই কাজ সেরে ফেলতে চাইছে রাজ্য নেতৃত্ব। যাতে নির্বাচনের আগেই আরও বেশি সংখ্যক মহিলাকে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের আওতায় নিয়ে আসা যায়, পুলিশ সুপার ও বিডিওদের সেই নির্দেশই দেওয়া হয়েছে নবান্নের তরফে।

আরও পড়ুনঃ- প্যান কার্ডে বড়ো অঙ্কের জরিমানা করতে চলেছে আয়কর বিভাগ। আজই করুন এই কাজ।

স্পষ্টতই প্রায় তিন লাখ আবেদনকারী লক্ষ্মীর ভান্ডারে নতুন করে নথিভূক্ত হবেন। স্বাভাবিকভাবেই লক্ষ্মীর ভান্ডারে মোট বরাদ্দের টাকা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার।

এমন সব গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের পুঙ্খানুপুঙ্খ আপডেট পেতে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ও টেলিগ্রাম চ্যানেলে যোগদান করুন নীচের লিঙ্কে গিয়ে।

টেলিগ্রাম চ্যানেল:- Link

হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ:- Link

Like Facebook Page