পুজোর আগে অক্টোবর মাসে দু’দিন বন্ধ থাকতে চলেছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও অফিস। কি কারণে এই ছুটি?

অক্টোবর মাসে দুর্গাপূজার আগে আবারো দুইদিন ছুটি থাকতে পারে স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় ও অফিস কাছারি। বলে রাখা ভালো এই ছুটি কিন্তু কোনও ধর্মীয় উৎসব বা রাজনৈতিক দলের ডাকা হর্তালের জন্য নয়। বরং এই বন্ধ ন্যায্য অধিকারের দাবিতে ছুটি থাকতে চলেছে রাজ্যের অফিস ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলি।

অক্টোবর মাসের এই দুদিনের ছুটি কোনো সাধারণ ছুটি নয় বা এই ছুটিতে খুশিও নন সরকারি কর্মীরা? তবুও কেন বন্ধের রব উঠেছে? বিশেষ কোন কারণে আগামী মাসে পুজোর আগে দুইদিন ছুটি থাকতে চলেছে স্কুল-কলেজ ও অফিস তা জানতে নিচের সম্পূর্ণ প্রতিবেদন শেষ পর্যন্ত পড়তে বলা হচ্ছে।

বিগত প্রায় একবছর ধরে পশ্চিমবঙ্গের সরকারি কর্মীদের উদ্যোগ সংগ্রামী যৌথ মঞ্চ চলতি বছর অক্টোবর মাসের ১০ ও ১১ তারিখ যথাক্রমে মঙ্গলবার ও বুধবার কর্মবিরতি ডাক দিয়ে স্কুল-কলেজ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও অফিস কাছারি বন্ধের ডাক দিয়েছে।

দুইশোরও বেশি দিন ধরে আন্দোলন করে চলা বাংলার সংগ্রামী যৌথ মঞ্চ তাদের বকেয়া ডিএ মেটানোর দাবিতে এই বন্ধ ঘোষণা করেছে। কেন্দ্র সরকার ও ভারতের অন্যান্য রাজ্য সরকার গুলি সরকারি কর্মীদের প্রায় সমহারে DA দিলে বঙ্গের কর্মীরা পান মাত্র ৬ শতাংশ ডিএ। কেন্দ্রের সমান হারে ডিএ পেলে রাজ্য সরকারের কাছে রাজ্যের কর্মীদের পাওনা আরও ৩৬ শতাংশ।

গত ফেব্রুয়ারী মাসেও সংগ্রামী যৌথ মঞ্চ দুদিন কর্মবিরতির ডাক দিয়ে আন্দোলন প্রদর্শন করলেও কোনও হেলদোল করেনি রাজ্য সরকার। এবার পূজোর মাসে পুজোর আগেই ফের দুদিন কর্মবিরতি করে আন্দোলনের হুঙ্কার দিয়েছে সংগ্রামী যৌথ মঞ্চ। আন্দোলনকারীদের দাবি, তাদের দাবি না মানলে আরও বৃহৎ মাত্রায় আন্দোলন হতে পারে। ইতিমধ্যেই নীচু স্তরের সরকারি কর্মীদের মধ্যেও কেন্দ্রীয় হারে মহার্ঘ ভাতা বৃদ্ধির এই আন্দোলনের প্রভাব বিস্তার লাভ করেছে।

আরও পড়ুনঃ- বাংলার মানুষ প্রতি মাসে পাবেন ১,০০০ টাকা। চালু হচ্ছে দীর্ঘদিন বন্ধ পড়ে থাকা পুরনো প্রকল্প ।

সম্প্রতি কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন বিরোধী দলগুলো একজোট হয়েছে। সেই সংক্রান্ত পরামর্শ বৈঠক ছিল হায়দ্রাবাদে। সেখানে রাজ্যের সরকারি কর্মীদের অন্যান্য রাজ্যগুলোর সমান হারে ডিএ না দেয়ায় রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে অন্যান্য দলগুলো কে চিঠি দিয়েছে সংগ্রামী যৌথ মঞ্চ। এখন দেখার শেষ পর্যন্ত রাজ্যের কর্মীদের ডিএ বৃদ্ধি হয় কিনা।

এমন আরও গুরুত্বপূর্ণ সব খবরের আপডেট সবার আগে পেতে আমাদের টেলিগ্রাম ও গুগল নিউজ এ অনুসরণ করুন।

গুগল নিউজ:- Link

টেলিগ্রাম:- Link

Like Facebook Page