Â

দেশজুড়ে লক্ষ্মীর ভান্ডার চালু করবে কেন্দ্র সরকার? দেশসুদ্ধ মহিলাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে কত টাকা করে ঢুকবে?

সারা দেশেই লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প চালু করতে পারে কেন্দ্র সরকার, সম্প্রতি এমনই এক গুরুত্বপূর্ণ আপডেট উঠে আসছে বিভিন্ন মাধ্যম সূত্রে। সামনেই লোকসভা নির্বাচন। আর তার আগে জনসাধারণের এমন ভাবনা অবান্তর কিছু নয়। তবে দেশজুড়ে মহিলাদের জন্য লাভজনক এমন প্রকল্প চালু হলে ব্যাংক অ্যাকাউন্টে কত টাকা করে পেতে পারেন ভারতবর্ষের মহিলারা বিস্তারিত আলোচনা জানুন নিচের প্রতিবেদনে।

পশ্চিমবঙ্গে লক্ষ্মীর ভান্ডার, তেলেঙ্গানায় গৃহলক্ষ্মী স্কীম, মধ্যপ্রদেশে লাডলী বেহেনা যোজনা প্রকল্পে মহিলাদের জন্য ন্যূনতম মাসিক আয়ের ব্যবস্থা করে রাজ্য নির্বাচনে বাজিমাৎ করেছে সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকার গুলি। আর কয়েক মাস পরেই চব্বিশে লোকসভা নির্বাচন। তাই মহিলা ভোটব্যাংক ভরাতে মহিলা ভোটার উৎসাহ দিতে উক্ত প্রকল্প গুলির মতো বড়ো কোনো পদক্ষেপ নিতে পারে নরেন্দ্র মোদি সরকার জাতীয় দৈনিক বাংলা আজতক সূত্রে এমনটাই আপডেট।

২০২৪ এ আসন্ন লোকসভা ভোটের পূর্বে ১লা ফেব্রুয়ারী দ্বিতীয় দফার পাঁচবছরের শেষ বাজেট পেশ করবেন কেন্দ্রীয় আয়কর ও অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। আর আসন্ন চব্বিশে লোকসভা ভোটের প্রাক্কালে জনসাধারণ ও বিভিন্ন রাজনৈতিক মহলের মধ্যে গুঞ্জন, এবার কেন্দ্রীয় বাজেটে বড়ো কিছু ঘোষণা করতে পারে বিজেপি সরকার। আর এটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। বিগত সরকার গুলিও এমনই কিছু করে এসেছে।

তবে বিশেষজ্ঞ মহলের মত, দেশের কৃষক, আয়করদাতা ও মহিলাদের নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে কেন্দ্র। মনে করা হচ্ছে কৃষকদের পিএমকিষাণ প্রকল্পের টাকা বৃদ্ধি, মধ্যবিত্ত চাকুরিজীবীদের আয়করে ছাড় ও দেশের মহিলাদের মাসিক ভাতা প্রদানের মতো অবাক কিছু ঘোষণা করতে পারেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন এমনটাই খবর উঠে এসেছে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম সূত্রে।

উল্লেখ্য, লাডলী বেহেনা প্রকল্প চালু করে রাজ্য নির্বাচনে বাজিমাৎ করেছে মধ্যপ্রদেশ সরকার। এই প্রকল্পের আওতায় রাজ্যের মহিলাদের মাসিক ১,২০০ টাকা করে দেওয়া হয়। যদিও শুরুতে ১,০০০ টাকা করে দেওয়া হতো। ২০২৪ এ এই প্রকল্পের অধীনে প্রতিমাসের অনুদানের পরিমাণ বাড়িয়ে ৩,০০০ টাকা করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান।

আরও বেশি সংখ্যক মহিলা যাতে এই প্রকল্পের সুবিধা গ্রহণ করতে পারে, তারজন্য এই প্রকল্পে আবেদনের বয়সসীমা ২৩ থেকে কমিয়ে ২১ বছর করেছে মধ্যপ্রদেশ সরকার। এই প্রকল্পে আবেদনের একটি শর্ত হলো যেসকল মহিলা বা মহিলার পরিবার আয়কর দিয়ে থাকেন, তারা এই প্রকল্পের সুবিধা নিতে পারবেন না।

আরও পড়ুনঃ- জরুরি আপডেট।এই কাজ না সারলে বন্ধ হবে ফোনপে,গুগল পে ও পেটিএম অ্যাকাউন্ট।আর পেমেন্ট করতে পারবেন না।

তাই চব্বিশে লোকসভা নির্বাচনের পূর্বে দেশসুদ্ধ আমজনতার মাথায় এখন একটাই প্রশ্ন ঘুরছে ভোটব্যাঙ্ক ভরাতে উক্ত রাজ্যের প্রকল্পগুলির মতো এমন কোনও স্কিম চালু করতে পারে কিনা মোদি সরকার? তবে এই সম্পর্কে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এখনো পর্যন্ত কোনও আপডেট নেই। কেন্দ্র সরকার এমন কোনো নতুন প্রকল্প চালু করলে সেই খবর সাথে সাথে আমাদের পোর্টালে প্রকাশ করা হবে।

কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের বিভিন্ন সামাজিক প্রকল্পের বিষয়ে নিত্যনতুন ও গুরুত্বপূর্ণ সর্বশেষ আপডেট সবার আগে পেতে হলে আমাদের নিচের মাধ্যমে অনুসরণ করতে পারেন। ধন্যবাদ। তথ্যটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন।

টেলিগ্রাম এ যুক্ত হন:- Link

হোয়াটসঅ্যাপ এ যুক্ত হন:- Link

Like Facebook Page