এই রেশন কার্ড এবং মেয়ে সন্তান থাকলে ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত দিচ্ছে সরকার। জানুন কিভাবে?

রেশন কার্ড থাকলে ১ লাখ টাকা পর্যন্ত দিচ্ছে রাজ্য সরকার। যাদের কন্যা সন্তান রয়েছে তারা এই সুবিধা পাবেন বলে জানা গিয়েছে বিভিন্ন মাধ্যম সূত্রে। কোন কোন খাতে, কিভাবে এই আর্থিক সহায়তার সুবিধা নিতে পারবেন এই বিষয়ে বিস্তারিত জানতে নিচের সম্পূর্ণ প্রতিবেদনটি শেষ পর্যন্ত পড়ার অনুরোধ রইলো।

খবরের আপডেট বিশেষ প্রকার রেশন কার্ড ও মেয়ে সন্তান থাকলেই এই সুবিধা মিলছে বলে জানিয়েছেন রাজ্য সরকারের এক আধিকারিক। উল্লেখ্য, ভারতীয় উপমহাদেশে কতিপয় পরিবারে জন্মের পর থেকেই বালিকা সন্তানদের (বিশেষত মহিলাদের) নানান রকম লাঞ্চনা সহ্য করে চলতে হয়। পাশাপাশি শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও জীবন শৈলীর সুযোগও-সুবিধার আঙ্গিকে আঙ্গিকে বঞ্চনার স্বীকার কন্যা সন্তানেরা।

দেশের দু:স্থ পরিবারগুলির কন্যা সন্তানদের যাতে শিক্ষা-স্বাস্থ্য ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধার ক্ষেত্রে বঞ্চিত না হতে হয়, তার জন্য পশ্চিমবঙ্গ, মহারাষ্ট্র, মধ্যপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা, উত্তরাখণ্ড ও গুজরাট সহ একাধিক রাজ্যে মহিলা ও কন্যাদের শিক্ষা-স্বাস্থ্যের উন্নতিকল্পে, তাদের ন্যূনতম রুটি-রোজগার এবং সর্বোপরি তাদের ভবিষ্যৎ সুনিশ্চিত করতে বিভিন্ন রকম প্রকল্পের সূচনা করেছে কেন্দ্র সরকার ও রাজ্য সরকার গুলি।

বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও, কন্যাশ্রী, গৃহলক্ষ্মী স্কীম, লাডলী বেহেনা যোজনা, লক্ষ্মীর ভান্ডার, Lek Ladki Scheme, Mahalaxmi Scheme সহ একাধিক মহিলা কল্যাণমুখী প্রকল্প চালু করা হয়েছে। আজকের আলোচ্য বিষয়, প্রতিটি পরিবারের একটি নির্দিষ্ট শ্রেণীর রেশন কার্ড ধারী কন্যারা ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত বিভিন্ন খাতে ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত সুবিধা পেয়ে যাবেন। সম্প্রতি মহারাষ্ট্র সরকার এই ঘোষণা করেছে।

এই প্রসঙ্গে একনাথ শিন্ডে সরকারের মুখপাত্র মনীষা কয়ান্দি জানিয়েছেন মেয়ে সন্তান জন্মের পরই কন্যার লালন পালন সহ মায়ের পরিচর্যার জন্য পাঁচ হাজার টাকা দেওয়া হয়। এরপর কন্যা সন্তানের শিক্ষার জন্য প্রথম শ্রেণীতে ছয় হাজার টাকা এবং ষষ্ঠ শ্রেণীতে সাত হাজার টাকা দেওয়া হয়। বালিকাদের একাদশ শ্রেণিতে পড়াকালীন পড়াশোনার জন্য বার্ষিক ৮,০০০ টাকা আর্থিক সাহায্য দিয়ে থাকে মহারাষ্ট্র সরকার। এরপর আঠারো বছর বয়স হলে পঁচাত্তর হাজার টাকা পর্যন্ত পড়াশোনার জন্য আর্থিকভাবে সহায়তা করা হয়ে থাকে সরকারের তরফে।

আরও পড়ুনঃ- আজ মহাপঞ্চমী! কোন রাশির জাতক-জাতিকাদের কেমন কাটবে পুজোর দিনগুলো?

এইভাবে একজন কন্যা ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত সর্বমোট এক লাখ টাকা পর্যন্ত সুবিধা পেয়ে যাবেন। তবে এই সুবিধা আপাতত মহারাষ্ট্রের মেয়ে সন্তানদের জন্যই উপলব্ধ হয়েছে। উল্লেখ্য, বিভিন্ন খাতে উপরের এই সমস্ত সুযোগ-সুবিধা পেতে মহারাষ্ট্রের বাসিন্দা কন্যা ছাত্রী (শিক্ষার্থীদের) কমলা অথবা হলুদ বর্ণের রেশন কার্ড রয়েছে এমন পরিবারের সদস্যা হতে হবে। অর্থাৎ নিম্ন আয় সম্পন্ন পরিবারের বালিকা-কন্যারাই এই প্রকল্পগুলির সুবিধা নিতে পারবেন।

সরকারি প্রকল্প সম্বন্ধে আরও গুরুত্বপূর্ণ সব খবরের আপডেট সবার আগে পেতে আমাদের টেলিগ্রাম ও ফেসবুক পেজ এ অনুসরণ করুন নিচের লিঙ্ক ক্লিক করে। ধন্যবাদ জুড়ে থাকার জন্য।

টেলিগ্রাম গ্রুপ:- Link

ফেসবুক পেইজ:- Link

Like Facebook Page