Â

আগস্টে হবে ষষ্ঠ-দশমের দ্বিতীয় সামেটিভ পরীক্ষা। তার আগে ফের একটানা লম্বা ছুটি পেতে চলেছে পড়ুয়ারা।

সদ্য শেষ হয়েছে রাজ্যের গরমের ছুটি। গত ২ রা মে থেকে ১৪ ই জুন পর্যন্ত স্থায়ী হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের Summer Vacation। দীর্ঘ দেড়মাস গরমের ছুটি পেরিয়ে রাজ্যের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলি খুললেও তীব্র গরমের জন্য শিশু পড়ুয়াদের নাজেহাল অবস্থার কারণে গরমের ছুটি বাড়ানো নিয়ে শিক্ষা দপ্তর ও রাজ্য সরকারের মধ্যে মিটিংও হয়েছে। তবে বিভিন্ন মাধ্যম সূত্রে সদ্য যে আপডেট উঠে এসেছে এবার গ্রীষ্মের জন্য নয় বরং অন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি কারণে আবারও একটানা লম্বা ছুটি পেতে চলেছে স্কুল পড়ুয়ারা। সঠিক কি কারণে এই ছুটি পড়তে চলেছে।

গ্রীষ্মের ছুটি পেরিয়ে গেলেও গরমের দাবদাহ কমার নামই নেই। মাঝে রাজ্যের কিছু জেলায় বিক্ষিপ্তভাবে বৃষ্টি হলেও গরমের হাত থেকে এখনই রেহাই মিলছে না। প্রচন্ড গরমের অস্বস্তিতে রীতিমতো নাজেহাল ও হাঁসফাঁস অবস্থা জনসাধারণের। এমতবস্থায় বাচ্চাদের কিভাবে স্কুলে পাঠাবেন সেই ভেবে কূল কিনারা পাচ্ছেন না অভিভাবক অভিভাবিকারা। এমনিতেই দীর্ঘ মেয়াদি ছুটির কারণে বিদ্যালয়ে পাঠরত ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনার অনেক ক্ষতি হয়ে গিয়েছে। সেই জন্য গ্রীষ্মের ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্তে সেভাবে সাড়া মেলেনি অভিভাবক সহ শিক্ষক শিক্ষিকাদের।

আরও পড়ুনঃ- বাংলা আবাস যোজনায় নতুন করে ঘর দেবে রাজ্য সরকার। বিরাট ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রী মমতার।

তবে আগামী জুলাই মাসেই রাজ্যে রয়েছে পঞ্চায়েত নির্বাচন। প্রত্যেক বারের মতো এবারও পঞ্চায়েত ভোটে রাজ্যের বহু মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভোট গ্রহণ পর্ব চলবে। সেইমতো নির্বাচনের নিরাপত্তা খতিয়ে দেখা ও প্রস্তুতির জন্য বেশ কিছুদিন বন্ধ থাকবে বিদ্যালয় গুলি। আগামী ৮ ই জুলাই রাজ্যজুড়ে একদিনেই সম্পন্ন হবে তেইশের পঞ্চায়েত নির্বাচন। ভোট গ্রহণে তিনদিন পরে রয়েছে ভোট গণনা। আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনের এই পর্ব সারতে মোটামুটি এক সপ্তাহের মতো সময় লাগবে। আর ঠিক সেই কারণেই এই ৭ দিন বন্ধ থাকতে চলেছে রাজ্যের স্কুলগুলো।

বিদ্যালয় বন্ধ থাকার দরুন স্বাভাবিকভাবেই ব্যাহত হবে ছাত্র ছাত্রীদের পঠন-পাঠন। আগস্টের প্রথমার্ধে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির সেকেন্ড সেমিস্টার। বিশাল সিলেবাস শেষ করার জন্য শিক্ষা দপ্তরের নির্দেশে শনিবার ফুল পিরিয়ড ও টিফিন টাইম কে কাজে লাগিয়ে ক্লাস নেওয়া অলরেডি শুরুও করে দিয়েছে স্কুল গুলি। তবে তীব্র গরমে আবারও ছুটির যে জল্পনা চলছিল, ভোটের ছুটির কারণে কাকতালীয় ভাবে সেই ছুটিই যেন পাওয়া গেল। যদিও পরপর ছুটির কারণে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় প্রভাব পড়বে। তবে আরও এক সপ্তাহ পেলে শারিরীকভাবে অনেকটাই স্বস্তি পাবে পড়ুয়ার।

আরও পড়ুনঃ- ভগবত গীতা স্কলারশিপে আবেদন করলে নিজের পায়ে না দাঁড়ানো পর্যন্ত পাবেন আর্থিক সহায়তা।

রাজ্য ও কেন্দ্র সরকার বিভিন্ন ছুটি সংক্রান্ত সর্বশেষ আপডেট পেতে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেল ও হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে জুড়ুন।

WhatsApp Group:- Link

টেলিগ্রাম চ্যানেল:- Link

Like Facebook Page