Â

পোস্ট অফিস মান্থলি ইনকাম স্কীম এ একবার টাকা জমিয়ে প্রত্যেক মাসে ৫,৩২৫ টাকা করে পেয়ে যান।

আজকাল সঞ্চয়ের সুরক্ষা ও সুদের হারের নিরিখে ব্যাঙ্কের থেকেও মানুষের কাছে বেশি ভরসা যোগ্য হয়ে উঠেছে পোস্ট অফিস স্কীম। আর ভারত সরকারের কেন্দ্রীয় এই সংস্থা তাই সকল ভারতবাসীর জন্য নিয়ে এসেছে লাভজনক একাধিক দুর্দান্ত পলিসি। তবে আজকের প্রতিবেদনের আলোচ্য বিষয় Post Office Monthly Income Scheme। পোস্ট অফিসের এই পলিসি তে একবার মাত্র/এককালীন টাকা জমিয়ে প্রত্যেক মাসে ৫,৩২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত পেতে পারেন।

পোস্ট অফিস মান্থলি ইনকাম স্কীম বা MIS এ কারা অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন? জয়েন্ট একাউন্ট খোলা যাবে? সর্বোচ্চ কত টাকা জমা রাখা যাবে? টাকা ম্যাচুরিটির আগে তোলা যাবে? সর্বশেষ সুদের হার, লোন পাওয়া যাবে কিনা? নমিনেশন সুবিধা ও ট্যাক্স বেনিফিট সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য নিয়েই আজকের প্রতিবেদনে a to z আলোচনা করা হলো। আপনিও যদি সঞ্চয়ের কথা ভাবছেন এবং কেন্দ্র সরকারের এই প্রকল্পের সুবিধা নিতে চাইছেন, তবে নিচের সম্পূর্ণ নিবন্ধ মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

পোস্ট অফিস MIS এর গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য:-

১) এটি একটি ৫ বছর মেয়াদের কেন্দ্র সরকারের পলিসি।
২) এই স্কিমের অধীনে পোস্ট অফিসে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা জমা রেখে প্রত্যেক মাসে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা উপার্জন করা সম্ভব।
৩) ভারতবর্ষের সমস্ত পোস্ট অফিসে এই POMIS এর সুবিধা উপলভ্য।

MIS এ কারা আবেদন করতে পারবেন?

১) ভারতীয় নাগরিকেরা এই Post Office MIS স্কিম এর অধীনে অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন।
২) ১০ বছরের অধিক বয়সেই এই একাউন্ট খোলা যাবে এবং এই একাউন্ট পরিচালনাও করতে পারবেন অপ্রাপ্তবয়স্করা।
৩) অপ্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তি বা প্রতিবন্ধীরা বা মানসিকভাবে সুস্থ নন এমন ব্যক্তির তরফে সেই ব্যক্তির অভিভাবক এই অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন।

সুবিধা ও সীমাবদ্ধতা:-

১) Non Resident Indian ব্যক্তিরা এই প্রকল্পের সুবিধা নিতে পারবেন না।
২) সিঙ্গেল একাউন্ট খোলা যাবে তবে জয়েন্ট একাউন্ট তিনজনের বেশি যুগপৎ অংশীদারিত্ব নিতে পারবেন না।
৩) একাধিক অ্যাকাউন্ট খোলা যাবে।
৪) জয়েন্ট একাউন্ট কে সিঙ্গেল এবং সিঙ্গেল একাউন্ট কে জয়েন্ট একাউন্টে রূপান্তরিত করা যাবে।
৫) অ্যাকাউন্টে নমিনেশন ফ্যাসিলিটি পাওয়া যায়।
৬) অ্যাকাউন্ট কে পোস্ট অফিসের এক শাখা থেকে আরেক শাখায় রূপান্তরিত করা যায়।
৭) এই স্কিম এর আওতায় কোনোরূপ লোন এর সুবিধা পাওয়া যায় না।
১) একজন সিঙ্গেল ব্যক্তি কোনোভাবেই ৪.৫ লাখ টাকার বেশি জমা করতে পারবেন না।

আরও পড়ুনঃ- স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া শিক্ষার্থীদের ১৫,০০০ টাকা করে দিচ্ছে। আবেদন করুন SBI Asha Scholarship এ।

ডিপোজিট এমাউন্ট:-

১) এই স্কিমের আওতায় ন্যূনতম সুবিধা পেতে ব্যক্তিে কমপক্ষে ১,০০০ টাকা জমা করতেই হবে।
২) একজন ব্যক্তি চাইলে এককভাবে সর্বোচ্চ ৪.৫ লাখ টাকা পর্যন্ত জমা করতে পারেন।
৩) জয়েন্ট একাউন্টে দু’জন ব্যক্তি এককভাবে ৪.৫ লাখ করে সর্বমোট ৯ লাখ টাকা পর্যন্ত জমা করতে পারেন।

প্রিম্যাচ্যুর উইথড্রল এর নিয়ম-কানুন:-

১) জমাকৃত টাকা ১ বছরের আগে কোনোভাবেই তোলা যাবে না।
২) ১-৩ বছরের মধ্যে টাকা তুললে জমাকৃত টাকার ২ শতাংশ কেটে নেওয়া হবে।
৩) ৩-৫ বছরের মধ্যে টাকা তুললে জমাকৃত টাকার ১ শতাংশ কেটে নেওয়া হবে।

ইনকাম ট্যাক্স বেনিফিট:-

১) U/s 80C আর্টিকেল অনুযায়ী কোনোরূপ ছাড় প্রদান করা হয় না।
২) কোনোরূপ TDS ( Tax Deducted at Source) কাটা হয় না।
৩) প্রত্যেক মাসে প্রাপ্য সুদের টাকার ওপর ট্যাক্স প্রযোজ্য।

সুদের হার, বিনিয়োগ ও লাভ্যাংশের পরিমাণ:-

বর্তমানে মার্চ,২০২৩ আপডেট অনুযায়ী MIS Scheme এ জমাকৃত টাকার ওপর ৭.১ শতাংশ হারে সুদ পাওয়া যাচ্ছে। পাঁচ বছর পর জমাকৃত আসল টাকার সহিত নিম্নলিখিত পরিমাণ সুদ লাভ্যাংশ পাবেন।

১) আপনি যদি এককালীন পঞ্চাশ হাজার টাকা জমা করেন, তবে প্রতি মাসে ২৯৬ টাকা সুদ পাবেন এবং পাঁচ বছরে মোট লাভ ১৭,৭৫০ টাকা।
২) আপনি যদি এককালীন ১ লাখ টাকা জমা করেন, তবে প্রতি মাসে ৫৯২ টাকা সুদ পাবেন এবং পাঁচ বছরে মোট লাভ ৩৫,৫০০ টাকা।
৩) আপনি যদি ২ লাখ টাকা জমা করেন, তবে প্রতি মাসে ১১৮৩ টাকা সুদ পাবেন এবং পাঁচ বছরে মোট লাভ ৭১,০০০ টাকা।
৪) আপনি যদি ৪.৫ লাখ টাকা জমা দেন, তবে প্রতি মাসে ২,৬৬২ টাকা সুদ পাবেন এবং পাঁচ বছরে মোট লাভ ১,৫৯,৭৫০ টাকা।
৫) আপনি যদি এককালীন ৯ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেন, তবে প্রতি মাসে ৫,৩২৪ টাকা সুদ পাবেন এবং পাঁচ বছরে মোট লাভ ৩,১৯,৫০০ টাকা।

পোস্ট অফিস ও কেন্দ্র সরকারে অন্যান্য লাভজনক স্কিম গুলি সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ লেটেস্ট আপডেট পেতে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপফেসবুক এ ফলো করতে পারেন।

Like Facebook Page